টপ ইলেভেন বি এ ফুটবল ম্যানেজার

টপ ইলেভেন বি এ ফুটবল ম্যানেজার একটি অনলাইন ভিত্তিক ফুটবল ম্যানেজার সিমুলেশন গেম,যা নরডিওস প্রস্তুত করে ২০১০ সালের মে মাসে বাজারে ছাড়ে। গেমটিতে একজন গেমার বা খেলোয়াড় শুধুমাত্র একটি ফুটবল দলের ম্যানেজার পদেই খেলতে পারেন। গুগল প্লে-স্টোর এবং এপ স্টোরে গেমটির এপ্লিকেশন পাওয়া যায়। গেমটি ফেসবুক-এ খেলা যায় এবং খেলোয়াড়েরা নিজেদের বন্ধুদের বিরুদ্ধেও গেমটি খেলতে পারবেন। সামাজিক মাধ্যমে ফুটবল ম্যানেজমেন্ট গেমের অভাব মোকাবেলার জন্য গেমটি তৈরি করা হয়েছিল। মূলত স্পোর্টস ইন্টার‍্যাক্টিভ-এর ফুটবল ম্যানেজার এবং ইলেক্ট্রনিক আর্টস-এর প্রিমিয়ার ম্যানেজার গেমগুলোর আদলে এই গেমটি তৈরি করা হয়েছে এবং সামাজিক মাধ্যমে জায়গা করার উপযোগী করা হয়েছে। বর্তমানে প্রায় ৬০ লক্ষাধিক মানুষ এই গেমটি খেলেন। টপ ইলেভেন বি এ ফুটবল ম্যানেজার মূলত ডেস্কটপ এপ্লিকেশন হিসেবে ফেসবুকে স্থান করে নেয়। ফেসবুকে ছাড়ার ২ বছরের মধ্যে গেমটি ২০১১ সালের নভেম্বর হতে মোবাইল ফোনে খেলার উপযোগী করা হয়েছে। রাশিয়ার বৃহত্তম সামাজিক নেটওয়ার্কগুলির মধ্যে অন্যতম,অদ'নক্লস্নেইকি-তে গেমটি ছাড়া হয়েছিল। ফেসবুক থেকে পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৪ সালে সেখানে মাসিক ১.৫ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী ছিল। ২০১৩ সাল হতে নরডিওস হোসে মরিনহোকে ফেইস অব দ্যা গেইম হিসেবে মনোনীত করে। তখন থেকে খেলোয়াড়েরা মরিনহোর প্রতিপক্ষ হয়ে খেলতে পারেন। মরিনহো ছাড়াও খেলোয়াড়েরা প্রায় ২০টিরও বেশি নিবন্ধনকৃত দলের রঙ বা জার্সি পড়ে খেলতে পারেন। তাদের মধ্যে রিয়াল মাদ্রিদ সি.এফ., আর্সেনাল এফ.সি., লিভারপুল এফ.সি., ইত্যাদি অন্যতম। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও এর জনপ্রিয়তা আছে। সামাজিক মাধ্যম, ফেইসবুকে গেমটির নিয়মিত খেলোয়াড়দের সমন্নয়ে Top Eleven Community (Bangladesh) নামের একটি গ্রুপও রয়েছে। গ্রুপটির সদস্যবৃন্দ তাদের অভিজ্ঞতা ও অর্জন প্রকাশের পাশাপাশি নতুন খেলোয়াড়দের বিভিন্ন উপদেশও দিয়ে থাকেন যা একজন নতুন খেলোয়াড়কে একটি শক্তিশালী এবং অভিজাত দল তৈরিতে সাহায্য করে থাকে।


Developed by მერაბ მგელაძე